Sun. Sep 25th, 2022

সরকারি সকল সুযোগসুবিধা প্রদানের একটি সমন্বিত উপায় হবেপরিবার পরিচিতি কার্ড

– জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা

সরকারি সহায়তার সুষম বন্টন নিশ্চিত করার জন্য প্রযুক্তি নির্ভর, স্বচ্ছ, নিরপেক্ষ ও স্থায়ী ব্যবস্থা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে জেলার সকল পর্যায়ের পরিবার তথা উচ্চবিত্ত, উচ্চ মধ্যবিত্ত, মধ্যবিত্ত, নিন্ম মধ্যবিত্ত ও নিন্মবিত্ত পরিবারগুলোর জন্য অর্থনৈতিক সক্ষমতা ভিত্তিক “পরিবার পরিচিতি কার্ড” প্রণয়ন ও বিতরণ : গোপালগঞ্জ মডেল এর কার্যক্রম শুরু করেছে গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসন।

সোমবার গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে পরিবার পরিচিতি কার্ডের বিশদ বর্ননা দিচ্ছেন জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা।

গোপালগঞ্জে পরিবার পরিচিতি কার্ড প্রণয়ন ও বিতরণের জন্য লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার পরিবার। সরকারি যেকোনো প্রকার সহায়তা এই কার্ডের মাধ্যমে ডিজিটাল পদ্ধতিতে বন্টন করা হবে। অর্থনৈতিক সক্ষমতা বিবেচনায় কার্ডগুলো এ বি সি ডি এবং ই – এই ৫ ক্যাটাগরিতে বিবেচিত হবে। এই কার্ডের মাধ্যমে জেলার আর্থ সামাজিক চিত্র ফুটে উঠবে। আপাতত এ ও বি ক্যাটাগরির কার্ড ভুক্ত পরিবারে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে হোম সার্ভিসের মাধ্যমে, এরপরে সি ও ডি ক্যাটাগরির পরিবার এসব সুবিধা পাবে এবং ই কার্ডের লোকজনের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে তাদের নিকট থেকে বিভিন্ন ধরণের সহায়তা নেয়া হবে – সোমবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে পরিবার পরিচিতি কার্ডের বিশদ বর্ননা দেন জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা।

জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা আরো বলেন, পরিবার পরিচিত কার্ডের থাকবে বহুমুখী ব্যবহার। এই কার্ড দিয়ে ওএমএস এর চাল ও দ্রব্যাদি বিক্রয় করা হবে। এছাড়াও  এই কার্ডের মাধ্যমে সরকারি সকল সহায়তা প্রদান করা যাবে। ভবিষ্যতে এই কার্ড  হবে সরকারি সকল সুযোগ-সুবিধা প্রদানের একটি সমন্বিত উপায়। জেলার কোনো পরিবারই পরিবার পরিচিতি কার্ডের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবেন না।

এসময় জেলা প্রশাসক গোপালগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি ও ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমের সর্বশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরেন ও করোনা মোকাবেলায় সাংবাদিকদের কাছ থেকে বিভিন্ন মতামত গ্রহণ করেন এবং করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে লকডাউন তথা সরকারি নির্দেশনা মেনে চলতে জেলাবাসীর প্রতি অনুরোধ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কাজী শহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আব্দুল্লাহ আল বাকী, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাদিকুর রহমান খান, এনডিসি মাহাবুবুল আলম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মামুন খান প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

মিজানুর রহমান মানিক. গোপালগঞ্জ
২২.০৪.২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published.