Sun. Apr 21st, 2024

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের মত বিনিময় সভায় সকলের সহযোগিতা প্রাপ্তি সাপেক্ষে গোপালগঞ্জকে “গ্রিন ও ক্লিন সিটি” হিসেবে গড়ে তোলার ঘোষনা দিলেন নব যোগদগানকৃত জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা।

বুধবার বিকেল ৪টায় সদর উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের আয়োজনে এ মত বিনিময় সভায় অংশগ্রহণ করেন, উপজেলা পর্যায়ে কর্মরত সকল বিভাগীয় কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা, স্থানীয় সুধীজন ও সাংবাদিকবৃন্দ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাদেকুর রহমান খানের সভাপতিত্বে এ মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে গোপালগঞ্জে নব যোগদানকৃত জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ লুৎফার রহমান বাচ্চু উপস্থিত ছিলেন।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের মত বিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মাহবুবুল আলম, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নিরুন্নাহার বেগম ও ভাইস চেয়ারম্যান নীতিশ রায়।

এ ছাড়াও অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য প্রদান পূর্বক স্ব স্ব মতামত তুলে ধরেন, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি শেখ রুহুল আমিন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মিটু, জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য ও লতিফপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফখরুল ইসলাম, গোপালগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র মো. নাজমুল হাসান নাজিম, উপজেলা পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তাদের পক্ষ থেকে সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান, পৗর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম নজরুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যানদের পক্ষ থেকে গোবরা ইউপি চেয়ারম্যান সফিকুর রহমান চৌধূরী টুটুল, জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সাংবাদিক মিজানুর রহমান মানিক,  শিক্ষকদের পক্ষ থেকে স্বর্ণকলি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক নাসিমা খানম, ত্রিবেণী গনসাংস্কৃতিক সংস্থার অধ্যক্ষ রাখাল কিশোর ঠাকুর সহ আরো অনেকে।

বক্তারা মত বিনিময় সভায় সদর উপজেলার শিক্ষা, স্বাস্থ্য, জীবিকায়ন সহ রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, সরকারি খাল দখল মুক্ত করা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার অংশ হিসেবে গোপালগঞ্জকে দুর্নীতি মুক্ত করা, সামাজিক নিরাপত্তা, সংস্কৃতি চর্চা প্রভৃতি বিষয়ে প্রধান অতিথির দৃষ্টি আকর্ষন করেন।

সদর উপজেলা পরিষদের মত বিনিময় সভার প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা তাঁর বক্তব্যে বলেন, গোপালগঞ্জ জেলা একটি বিশেষ জেলা, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিধন্য গোপালগঞ্জ জেলার শিক্ষার হার আশানুরূপ নয়, এজন্য শিক্ষার উপর বিশেষ নজর দেয়া হবে। গোপালগঞ্জ জেলাকে মডেল জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে চাই, দুর্নীতি মুক্ত গোপালগঞ্জ গড়তে চাই। গোপালগঞ্জকে “গ্রিন ও ক্লিন সিটি” হিসেবে গড়তে চাই, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত “আমার গ্রাম আমার শহর”  বাস্তবায়ন করতে চাই, গ্রামে বাস করে মানুষ শহরের সুবিধা পাবে – আর এ সকল কিছু বাস্তবায়ন করতে গেলে আপনাদের সকলের সম্মিলিত সহযোগিতা অত্যন্ত প্রয়োজন, যার যার জায়গা থেকে ভূমিকা রাখতে হবে।

তিনি উপজেলা পর্যায়ে কর্মরত সকল বিভাগীয় কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদেরকে ১মাস সময় দেয়া হলো, যার যার সেক্টরের উন্নয়ন কর্ম পরিকল্পনা আগামী ১মাসের মধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট জমা দেবেন, এর বেশি সময় দেয়া যাবেনা, ১মাস পরেই কাজ শুরু করা হবে। স্বল্প মেয়াদী, মধ্য মেয়াদী ও দীর্ঘ মেয়াদী, মোট তিনটি মেয়াদের কর্ম পরিকল্পনা সমন্বয় পূর্বক বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া শুরু হবে।

মত বিনিময় সভার সভাপতি  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাদেকুর রহমান খান উপস্থিত সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং মত বিনিময় সভায় উত্থাপিত বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য সকলের সক্রিয় সহযোগিতা কামনা করেন।#

মিজানুর রহমান মানিক

১১.০৭.১৯

Leave a Reply

Your email address will not be published.