Fri. Jun 21st, 2024

গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদের পৃষ্ঠপোষকতায় জেলার ২০১৮ সালের  এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ প্রাপ্ত গোপালগঞ্জ জেলার ১৫১ মেধাবী শিক্ষার্থীকে এককালীন বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে গোপালগঞ্জ জেলার মেধাবী শিক্ষার্থীদের এককালীন বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান ২০১৯ অনুষ্ঠিত হয়।

গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা চৌধূরী এমদাদুল হকের সভাপতিত্বে শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে গোপালগঞ্জ – ১ আসনের সাংসদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার ও পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু ইউসুফ মো. রেজাউর রহমান, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ লুৎফার রহমান বাচ্চু, জেলা শিক্ষা অফিসার খায়রুল আনাম মো. আফতাবুর রহমান হেলালী, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি শেখ রুহুল আমিন উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও গোপালগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাড. মুন্সী মো. আতিয়ার রহমান, জেলা পরিষদ সদস্য শেখ সাহাবুদ্দিন হিটু, শাহনাজ নাজনীন বাবলী, সালাউদ্দিন মিয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি এ্যাড. আব্দুল হালিম, চৌধূরী খসরুল আলম সহ জেলা পরিষদের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক – শিক্ষিকা ও অভিভাবকবৃন্দ বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

গোপালগঞ্জ জেলার মেধাবী শিক্ষার্থীদের এককালীন বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু ইউসুফ মো. রেজাউর রহমান।

উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, বিগত ১০ বছর ধরে গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদ জেলার মেধাবী শিক্ষার্থীদেরকে প্রতি বছর বৃত্তি প্রদান করে আসছে, আর্থিক বিবেচনায় বৃত্তির এ টাকা হয়তো কিছুইনা, কিন্তু একজন মেধাবী শিক্ষার্থীকে তাকে স্বীকৃতি প্রদান পূর্বক সম্মান করা, এ বিবেচনায় এ বৃত্তির মূল্য সীমাহীন। আজকের এ বৃত্তি পাওয়া তোমাদের মনে যেন কোনো প্রকার অহমিকা জায়গা না পায়, বরং আজকে প্রতিজ্ঞা করতে হবে, সামনে আরো বড় স্বীকৃতি অপেক্ষা করছে, সেটাকে জয় করতে হবে, উন্নত বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে নিবেদিত ভূমিকা রাখতে হবে, সর্বোপরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি গোপালগঞ্জ – ১ আসনের সাংসদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার ও পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান বলেন, আজকের এ অনুষ্ঠান নি:সন্দেহে একটা ভালো উদ্যোগ, এজাতীয় উদ্যোগ শিক্ষার্থীদেরকে আরো ভালো রেজাল্ট করার ব্যাপারে উৎসাহ যোগাবে। তবে একটা বিষয় লক্ষনীয় ছেলেদের চেয়ে মেয়েরা বেশি এগিয়ে, ১৫১ জনের মধ্যে ১০৪ জনই মেয়ে। শিক্ষিত জাতি গঠনে শিক্ষিত মায়ের কোনো বিকল্প নেই, পাশাপাশি ছেলেদেরকে পড়াশুনায় আরো মনযোগী হতে হবে, ফেসবুক ব্যবহার কমাতে হবে।

গোপালগঞ্জ জেলার মেধাবী শিক্ষার্থীদের এককালীন বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানের সভাপতি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা চৌধূরী এমদাদুল হক অনুষ্ঠানে আগত সকলের প্রতি তাঁর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ২০১৮ সালের  এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ প্রাপ্ত গোপালগঞ্জ জেলার মাত্র ১৫১ জন শিক্ষার্থী, এরমধ্যে এইচএসসি পর্যায়ের ১৭ জন, আমরা আশা করেছিলাম এ সংখ্যা আরো বাড়বে। গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদ গোপালগঞ্জের মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তির ব্যবস্থা অব্যাহত রাখবে, আমরা চাই, জেলার মেধাবী শিক্ষার্থীর সংখ্যা আগামীতে আরো বৃদ্ধি পাক।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলাধীন কাজী জহুরুল হক কলেজের শিক্ষার্থী রিফাতুন নাহান রিয়া ও সরকারী বঙ্গবন্ধু কলেজের শিক্ষার্থী নাফিজ তাহমিদ সাজিদ তাদের প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আজকে আমাদেরকে বৃত্তি প্রদান করে যে সম্মান করা হলো, আমরা সেটা ভবিষ্যতের পাথেয় হিসেবে অন্তরে লালন করবো এবং ভবিষ্যতে আরো ভালো ফল করে দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখবো।

মিজানুর রহমান মানিক

গোপালগঞ্জ

০৭.০৬.১৯

Leave a Reply

Your email address will not be published.